কিভাবে দীর্ঘদিন লেবু সংরক্ষণ করবেন?

ভিটামিন সি তে ভরপুর একটি ফল লেবু। এই লেবু সারা বছরই পাওয়া যায়। কিন্তু কিছু জাতের লেবু আছে যা কিনা সারা বছর পাওয়া যায় না। লেবু শুকিয়ে যাওয়া অথবা কালচে রং ধারণ করা থেকে রক্ষা করতে চাই সঠিক সংরক্ষণ পদ্ধতি।

রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ভিটামিস সি’র উৎস হিসেবে লেবুর চাহিদা বেড়েছে। তবে বেশি পরিমাণে লেবু কিনে এনে নষ্ট হওয়া মানে শুধু শুধু অর্থের অপচয়। তাই লেবু সঠিকভাবে সংরক্ষণ করার কয়েকটি পদ্ধতি জানানো হল পুষ্টিবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন অবলম্বনে।

– লেবু সংরক্ষণ করার সবচেয়ে ভালো উপায় হল রেফ্রিজারেইটরে রাখা। রেফ্রিজারেটরে লেবু এক সপ্তাহ পর্যন্ত ভালো থাকে।

– লেবু দীর্ঘদিন যেমন- এক মাস ভালো রাখতে চাইলে তা ‘জিপলক ব্যাগে আস্ত লেবু ঢুকিয়ে এক পাশে একটি স্ট্র রেখে পুরো ব্যাগ সিল করে দিন। এবার স্ট্র দিয়ে ভেতরে থাকা অবশিষ্ট বাতাস বের করে দিন। ব্যাগ ঢুকিয়ে রাখুন ফ্রিজে।

– অর্ধেক কাটা লেবু সংরক্ষণ করতে চাইলে তা খাবার পেঁচানোর প্যাকেট বা আবদ্ধ কোন কৌটায় সংরক্ষণ করুন। এবং তা অবশ্যই কয়েকদিনের মধ্যে ব্যবহার করতে হবে।

– লেবু সংরক্ষণ করার আরেকটা সহজ উপায় হল একটা কাচের পাত্রে পানি দিয়ে তাতে সব লেবু রেফ্রিজারেইটরে রাখা।

– লেবুর রস রেফ্রিজারেইটরে কয়েকদিন পর্যন্ত ভালো থাকে। কয়েকদিন পরে তা রান্না অথবা বেইক করার কাজে ব্যবহার করতে পারেন। তবে এটা তাজা লেবুর শরবত হিসেবে ব্যবহার করা যাবে না।

– লেবু ছোট টুকরা করে বরফ জমানোর ট্রেতে রাখুন। ট্রেতে পানি ভরে ডিপ ফ্রিজে রেখে দিন। ব্যবহারের আগে বরফ গলিয়ে নিন। এভাবে ৩ মাস পর্যন্ত তাজা থাকবে লেবু।

-লেবু টুকরা করে কেটে সংরক্ষণ করতে চাইলে তা একটা বায়ুরোধী পাত্রে এক সপ্তাহ পর্যন্ত সংরক্ষণ করতে পারেন।

– লেবু এথেলিন’য়ের ক্ষেত্রে সংবেদশীল। তাই এথেলিন উৎপন্ন হয় এমন ফল- অ্যাপ্রিকটস, আপেল, কলা ইত্যাদি থেকে দূরে রাখুন।

তথ্যসূত্রঃ বিডি নিউজ ২৪

Add a Comment

Your email address will not be published.

CAPTCHA