ব্রকোলি খাবার উপকারিতা জানলে আপনি অবাক হবেন

ব্রকোলি বর্তমানে বাংলাদেশে খুবই জনপ্রিয় একটি সবজি। বহুবিধি উপকারিতা রয়েছে ব্রকোলিতে। খরচ, সঙ্গে প্রাণনাশের ভয়। এই দুই আতঙ্কই ক্যানসার সম্পর্কে শঙ্কা তৈরি করে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা হু-এর একটি সমীক্ষায় জানা গিয়েছে, প্রতি বছর প্রায় ১৩ লক্ষ ৮০ হাজার মানুষ নতুন করে স্তন ক্যানসারে আক্রান্ত হচ্ছেন এবং ৪ লক্ষ ৫৮ হাজার মানুষের মৃত্যু হচ্ছে এই রোগে। খাবারের পাতে নজর, নিয়ম মেনে স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন, চিনি-নুন-ময়দার হার কমিয়ে ফেলা এ সব অভ্যাসেই রোগ থেকে দূরে থাকার নিদান দিয়ে থাকেন চিকিৎসকরা।

ক্যানসার নিয়ে সারা বিশ্বে নানা গবেষণায় উঠে এসেছে ম্যালিগন্যান্সি ঠেকানোর উপায়ের সুলুকসন্ধান। সম্প্রতি কয়েকটি গবেষণাপত্রে দাবি করা হয়েছে, ক্যানসারের টিউমারের বৃদ্ধি (ম্যালিগন্যান্ট টিউমার) ঠেকাতে ব্রকোলি হয়ে উঠতে পারে অত্যন্ত কার্যকরী। বিশেষ করে স্তন ক্যানসারের ক্ষেত্রে এই সব্জির ভূমিকা অনেক।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ‘হু’-এর সমীক্ষা অনুসারে, ২০১৭-’১৮-তে পৃথিবীতে প্রায় ১৩ লক্ষ ৮০ হাজার মানুষ স্তন ক্যানসারে আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গিয়েছেন ৪ লক্ষ ৫৮ হাজার মানুষ। ভারতেও এই রোগ উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে।

জার্মানির হাইডেলবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক ম্যালিগন্যান্ট টিউমারের বাড়বৃদ্ধি রুখতে গবেষণা চালিয়েছেন দীর্ঘ দশ বছর।

প্রধান গবেষক ইনগ্রিড হ্যারের মতে, ব্রকোলির বিটা-ক্যারোটিন, ফ্ল্যাভোনয়েড, লিউটেন, ক্যারটিনয়েড এবং জিক্সানথিন-এর মতো একাধিক অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট উপাদান একাধিক গুরুতর রোগ প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।

তবে ক্যানসারের বেলায় এই সব্জি আরও একটু বিশেষ ভূমিকা পালন করে। পরীক্ষায় দেখা গিয়েছে, ব্রকোলিতে থাকা সালফোরাফেন নামক ভেষজ যৌগ প্রায় ৭৫ শতাংশ ক্ষেত্রেই ম্যালিগন্যান্ট টিউমারের বৃদ্ধি ঠেকাতে সক্ষম। এ ছাড়াও এতে থাকা গ্লুকোরাফানিন ক্ষতিগ্রস্ত ত্বকের টিস্যু মেরামত করতে পারে।

গবেষকদের সঙ্গে সহমত এই শহরের ক্যানসার বিশেষজ্ঞ সুকুমার সরকারও। তাঁর মতে, ‘‘রোগ হলে চিকিৎসা করাতেই হবে। তবে রোগ আসার আগেই প্রতিরোধে মন দিন। শরীরকে সুস্থ রাখতে সবুজ শাকসব্জিতে সকলকেই আস্থা রাখতে বলা হয়।

এর মধ্যে ব্রকোলির এমন ক্ষমতা মাথায় রেখে তাকেও খাবারের তালিকায় রাখতেই পারেন। ক্যানসারের বিভিন্ন ওষুধেও সালফোরাফেনের ব্যবহার আছএ, যা ব্রকোলির থেকেও সহজেই মেলে।’’

শুধু ক্যানসারই নয়, ব্রকোলি হৃদরোগ ও স্ট্রোকের ঝুঁকিও কমায় বলে দাবি হ্যারের। ব্রকোলির পটাশিয়াম, ক্যালশিয়াম এবং ম্যাগনেশিয়ামের অন্যতম প্রধান জোগানদার। এগুলি স্নায়ুতন্ত্র ও হাড়কে সুস্থ রাখার ক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

ব্রকোলির দশটি স্বাস্থ্য উপকারিতা

কোলেস্টেরল হ্রাস করেঃ ব্রকোলিতে প্রচুর পরিমানে দ্রবণীয় ফাইবার আছে যা শরীর থেকে কলেস্টেরল বের করে দেয়|

অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট্যঃ ব্রকোলির অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট্য অন্য খাবারের থেকে একে উচ্চতম স্থানে রাখে |ব্রকোলিতে প্রচুর পরিমানে ফ্ল্যাভোনয়েড , লিউটেনের সঙ্গে ক্যারটিনয়েড,বিটা-ক্যারোটিন এবং জিক্সানথিন- সব শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আছে যা অনেক গুরুতর রোগ প্রতিরোধ করে|

পাচনতন্ত্র পরিষ্কার রাখেঃ ব্রকোলি একটি প্রাকৃতিক ডেটক্স যা পেট এবং পাচনতন্ত্র সাফ রাখে|ব্রকোলিতে অ্যান্টি-অক্সিডেন্টের মাত্রা বেশি বলেই এটা সম্ভব হয়|

হাড়ের শক্তি যোগায়ঃ অনেক সুপার সবজির চেয়ে ব্রকোলিতে ক্যালসিয়ামের মাত্রা অনেক বেশি যা এই সকল সবজিতে এতো বেশি মাত্রায় পাওয়া যায় না| ক্যালসিয়াম হাড়ের স্বাস্থ্যের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান|

অ্যান্টি- ক্যান্সারঃ এটা সম্ভবত মানুষের স্বাস্থ্যের ওপর ব্রকোলির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উপকারিতা| ব্রকোলিকে অন্যতম শক্তিশালী ক্যান্সার বিরোধী খাদ্য বলা যেতে পারে এর খনিজ, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও পুষ্টির বৈশিষ্ট্যের জন্য|

ব্লাড সুগারঃ রক্তের শর্করা নিয়ন্ত্রণে রাখে এমন খাদ্যের মধ্যে ব্রকোলি অন্যতম| এটা চিনির প্রভাব রোধ করে ও রক্তে শর্করার মাত্রা কম রাখে| এটা সম্ভব কারণ ব্রকোলি ভালো কার্ব যা ফাইবার সমৃদ্ধ বলে পরিচিত|

মানসিক স্বাস্থ্যঃ ব্রকোলি ভিটামিন সি, ভিটামিন কে এবং ওমেগা -3 ফ্যাটি এসিড সমৃদ্ধ| এই তিনটি উপাদান মানসিক স্বাস্থ্য প্রবর্তক হিসেবে প্রমাণিত|ব্রকোলি সেই সকল খাদ্যের মধ্যে একটি যা মস্তিস্ক ও বুদ্ধি উন্নত করে|

আন্টি-ইনফ্লামেটরি বৈশিষ্ট্যঃ ব্রকোলিতে আন্টি-ইনফ্লামেটরি এবং আন্টি-এলার্জির বৈশিষ্ট্য আছে| এর ওমেগা -3 ফ্যাটি এসিড এবং একটি শক্তিশালী যৌগ কেমফেরোল বৈশিষ্ট্য শরীরের এলার্জি রোধ করতে সাহায্য করে|

সুস্থ ও উজ্জ্বল ত্বকঃ ব্রকোলিতে গ্লুকোরাফানিন বৈশিষ্ট্য ক্ষতিগ্রস্ত ত্বকের টিস্যু মেরামত করে এবং সুস্থ ও উজ্জ্বল ত্বক উন্নত করে|

কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্রের জন্যঃ ব্রকোলি পটাসিয়াম এবং ম্যাগনেসিয়াম সমৃদ্ধ, যা একটি সুস্থ স্নায়ুতন্ত্রের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ|

তথ্যসূত্রঃ আনন্দবাজার ও বোল্ড স্কাই

Add a Comment

Your email address will not be published.

CAPTCHA