কিভাবে সহজেই চিনবেন সুস্থ মুরগির বাচ্চা

দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে দিন দিন মুরগির খামার বৃদ্ধি পাচ্ছে। অনেকেই বেকারত্ব দূর করার জন্য মুরগির খামার করছেন। এটি বেশ লাভজনক কাজ।

তবে মুরগির খামারের সবচেয়ে বড় বিষয় সুস্থ বাচ্চা চিনে তা খামারের জন্য কিনতে পারা। ভালো মানের অর্থ্যাৎ নিরোগ, সুস্থ ও আকারে পরিমিত না হলে খামারে লোকসান হওয়ার ঝুঁকি থাকে। সুস্থ মুরগির বাচ্চা চেনার সহজ উপায় রয়েছে। জেনে নিন এ উপায় সম্পর্কে।

উচ্চ জেনেটিক পটেনশিয়ালিটি সম্পন্ন বাচ্চা, হাতে নিলে পরিচ্ছন্ন ও শুকনো মনে হবে। নরম পালকে আচ্ছাদিত শরীর এবং যে কোনো প্রকার ক্ষত ও দূষণমুক্ত, সচকিত চাহনী, পরিচ্ছন্ন ও উজ্জ্বল চোখ, শারিরীক ত্রুটিমুক্ত সুস্থ বাচ্চার লক্ষণ।

অন্যদিকে সুস্থ মুরগির বাচ্চার নাভী পরিষ্কার শুকনো থাকবে। কোন প্রকার মেমব্রেন ও কুসুম শরীরে লেগে থাকবে না। শরীর স্পর্শ করলে দৃঢ় অনুভূত হবে। কিন্তু হাতে ধরলে হাড়ের অস্তিত্ব বোঝা যাবে না, শ্বাস-প্রশ্বাসজনিত ত্রুটিমুক্ত, পারিপার্শ্বিক অবস্থার প্রতি কৌতূহলী ও প্রতিক্রিয়াশীল হবে।

সুস্থ মুরগির বাচ্চার ওজন হবে ডিমের প্রাথমিক ওজনের ৬৭-৭০ শতাংশ, যে বাচ্চার দেহের দৈর্ঘ বেশি তার উৎপাদন ক্ষমতা ভালো। মুরগির বাচ্চা কেনার সময় এসব বিষয়গুলো খেয়াল করে কিনলে খামারিরা লাভবান হবেন।

Add a Comment

Your email address will not be published.

CAPTCHA