ছোট মাছের ৯ টি ইউনিক রেসিপি

বড় মাছের পাশাপাশি বাজারে এখন পাওয়া যাচ্ছে অনেক রকম ছোট মাছ। বড় মাছের তুলনার ছোট মাছের পুষ্টিগুণ অনেক বেশি। তাই আজ নিয়ে এলাম পরিচিত ছোট মাছের ৯ টি রেসিপি একসাথে। ভাল লাগলে সংগ্রহে রাখতে পারেন।

১। মলা মাছের বেগুন চড়চড়ি

যা লাগবে :মলা মাছ ১/২কেজি, বেগুন ১/২কেজি, পেঁয়াজ ১কেজি, রসুন ১/২কেজি, আদা ১ চা- চমচ, জিরাবাটা ১ চা- চমচ, ধনিয়া গুড়া এক চা- চমচ, কাচাঁ মরিচ ৮-১০টি, লবণ ও হলুদের গুড়া পরিমাণ মতো, তেল আপনার চাহিদা অনুযায়ী।

যেভাবে করবেন :পরিষ্কার করার সময় মাছের মাথা গুলোকে কেটে বাদ দিতে হবে। এপর ভাল ভাবে ধুয়ে নিতে হবে। বেগুন গুলোকে ছোট-ছোট টুকরো করে কেটে নিতে হবে। প্রথমে গরম তেলে পেয়াজ ও কাচাঁ মরিচ হালকা ভাবে ভেজে নিতে হবে এরপর, একেক করে সব মসলা দিয়ে একটু কষিয়ে নিতে হবে ।এবার মাছগুলোকে মসলার মধ্যে ছেড়ে দিয়ে কিছুক্ষণ নাড়তে থাকুন। মাছগুলো কসানো হয়ে গেলে পরিমান মতো পানি দিয়ে দিন। ২মিনিট পর বেগুনগুলো ছেড়ে কষিয়ে গরম পানি দিয়ে ঢেকে দিন। ১০-১২ মিনিট পর ঝোল ঘন হয়ে গেলে নামিয়ে পরিবেশন শুরু করুন।

২। মৌরলা মাছের আম চচ্চড়ি

যা লাগবে :১. মৌরলা মাছ ৪০০ গ্রাম,২. পেঁয়াজ বাটা ২ টেবিল চামচ,৩. সরিষা বাটা ১ চা-চামচ,৪. কাঁচা মরিচ বাটা ২টি,৫. নারকেল বাটা (ইচ্ছামতো) ১ টেবিল চামচ,৬. রসুন বাটা ১ চা-চামচ,৭. হলুদ ও মরিচ গুঁড়া আধা চা-চামচ করে,৮. কাঁচা আম চার টুকরা,৯. আলু কুচি ১টি (মাঝারি),১০. লবণ স্বাদমতো,১১. সরিষার তেল প্রয়োজনমতো,১২. পানি ১ কাপ।

যেভাবে করবেন : আম ছাড়া বাকি সব উপকরণ দিয়ে একটি কড়াইয়ে মেখে ১০ মিনিট মেরিনেট করে রাখুন। মাঝারি আঁচে চুলায় দিয়ে রান্না করুন। সব উপকরণ সেদ্ধ হয়ে এলে কাঁচা আম দিন। কিছুক্ষণ চুলায় রেখে ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

৩। কাচকি মাছের চড়চড়ি

যা লাগবে: কাচকি মাছ আধা কেজি, পেয়াজ ১কাপ, কাচা মরিচ ৮টি, টমেটো অর্ধেক, হলুদের গুড়া ১/২ চামচ, আদা বাটা ১ চা চামচ, জিরা বাটা ১ চা চামচ, তেল ১/২ কাপ, লবন পরিমাণ মতো, সাথে সামান্য ধনে পাতা।

যেভাবে করবেন :প্রথমে মাছ ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিতে হবে। যে পাত্রে রান্না করা হবে সেই পাত্রে তেল, মাছসহ বাকি সব উপকরণ সমূহকে (ধনে পাতা বাদে) এক সাথে হাত দিয়ে মাখাতে হবে। তারপর সামান্য পরিমাণ পানি দিয়ে চুলায় বসিয়ে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। ৪-৫ মিনিট পর ধনে পাতা দিয়ে নেড়ে পানি শুকিয়ে ফেলতে হবে । পানি শুকিয়ে গেলে নামিয়ে ফেলুন। এরপর পরিবেশন করুন।

৪। কাজলি মাছের ঝোল

যা লাগবে : :১. কাজলি মাছ ৫০০ গ্রাম,২. পেঁয়াজ কুচি এক কাপ,৩. পেঁয়াজ বাটা এক টেবিল চামচ,৪. রসুন বাটা এক চা-চামচ,৫. হলুদ গুঁড়া আধা চা-চামচ,৬. মরিচ গুঁড়া আধা চা-চামচ,৭. কাঁচা মরিচ ৩-৪টি,৮. টমেটো কুচি একটি,৯. ভাজা জিরার গুঁড়া আধা চা-চামচ,১০. তেল পরিমাণমতো,১১. লবণ স্বাদমতো।

যেভাবে করবেন : মাছ ধুয়ে ঝরিয়ে নিন। এবার তাতে হলুদ ও মরিচের গুঁড়া, লবণ মেখে ১০ মিনিট রেখে দিন। ফ্রাইপ্যানে তেল দিয়ে কাটা পেঁয়াজ দিন। পেঁয়াজ একটু নরম হলে সব মসলা, লবণ ও সামান্য পানি দিয়ে কষান। মসলা কষা হলে তাতে দুই কাপ পানি দিন। অন্য একটি ফ্রাইপ্যানে তেল দিয়ে মাছ একটু লাল করে ভাজুন। এবার ভাজা মাছগুলো ফুটন্ত ঝোলের মধ্যে দিন। টমেটো কুচি দিন। কাঁচা মরিচ দিয়ে একটু ঝোল রেখে নামিয়ে গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

৫। মুলা দিয়ে ছোট পুটি মাছ

যা লাগবে :ছোট পুটি মাছ ২৫০গ্রাম, মুলা কুচি ১কাপ, পেয়াজ কুচি ১/২কাপ, কাচাঁ মরিচ ৫-৬টি, আদা বাটা ১চা- চামচ, লবন ও হলুদের গুড়া পরিমান মতো, তেল আপনার চাহিদা অনুযায়ী।

যেভাবে করবেন :প্রথমে মাছ গুলোকে ভাল ভাবে পরিষ্কার করে নিতে হবে এরপর মুলা কুচি কুচি করে কেটে নিতে হবে। তেল, মূলা, মাছ এবং বাকীসব উপকরণ গুলোকে একসাথে মাখিয়ে চুলায় বসিয়ে দিন। ঢাকনা দিয়ে ঢেকে আস্তে-আস্তে জাল দিতে হবে। ৫মিনিট দমে রাখার পর ঢাকনি খুলে এক কাপ পানি দিয়ে আবার ঢেকে দিন। পানি শুকিয়ে গেলে নামিয়ে ফেলুন।

৬। বেলে-টমেটোর টক

যা লাগবে :১. বেলে মাছ ৪০০ গ্রাম,২. টমেটো কুচি ১টি,৩. পেঁয়াজ বাটা ২ টেবিল চামচ,৪. রসুন বাটা ১ চা-চামচ,৫. জিরা বাটা ১ চা-চামচ,৬. কাঁচা মরিচ ফালি ২-৩টি,৭. হলুদ গুঁড়া আধা চা-চামচ,৮. মরিচ গুঁড়া আধা চা-চামচ,৯. লবণ স্বাদমতো,১০. তেল প্রয়োজনমতো,১১. পানি আধা কাপ।

যেভাবে করবেন : মাছ কেটে ধুয়ে তাতে লবণ, হলুদ ও রসুন বাটা মেখে ফ্রাইপ্যানে তেল দিয়ে ভেজে তুলে রাখুন। কড়াইয়ে তেল দিয়ে তাতে পেঁয়াজ বাটা, রসুন বাটা, জিরা বাটা, হলুদ গুঁড়া, মরিচ গুঁড়া, লবণ ও সামান্য পানি দিয়ে কষিয়ে নিন। কষানো হলে টমেটো কুচি দিয়ে একটু নেড়েচেড়ে পানি দিন। পানি ফুটে উঠলে বেলে মাছগুলো দিন। ঝোল ঘন হলে কাঁচা মরিচ দিয়ে নামিয়ে নিন।

৭।ছোট মাছের পাকুড়া

যা লাগবে :ছোট মাছ ২৫০গ্রাম, আলু ১টি, পেয়াজ ৪-৫টি, কাচাঁ মরিচ ৫-৬টি, আদা বাটা ১চা- চামচ, লবন ও হলুদের গুড়া পরিমান মতো, সাথে ধনে পাতা কুচি, ভাজার জন্য তেল, বেশন ১/২কাপ, ময়দা পরিমান অনুযায়ী।

যেভাবে করবেন : ছোট মাছ, আলু কুচি, পেয়াজ কুচি, মরিচ কুচি এবং বাকি সব মসলা (ময়দা ও বেশন বাদে) এক সাথে মাখাতে হবে। এরপর মাখানো উপকরণ গুলোর সাথে ময়দা ও বেশন মাখিয়ে পেয়াজু কিংবা চপ আকারে বানিয়ে গরম তেলে ছেড়ে দিতে হবে। বাদামী রং ধারণ করলে তুলে ফেলতে হবে।

৮। সরিষা বাটায় মলা মাছ

যা লাগবে :১. মলা মাছ ২৫০ গ্রাম,২. পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ,৩. রসুন বাটা ১ চা-চামচ,৪. সরষের তেল ২ টেবিল চামচ,৫. লবণ স্বাদমতো,৬. পানি পরিমাণমতো,৭. হলুদ গুঁড়া ১ চা-চামচ,৮. ধনিয়াপাতার কুচি ২ টেবিল চামচ,৯. সরিষা বাটা ১ টেবিল চামচ,১০. টমেটো কুচি ১ টেবিল চামচ,১১. শুকনা মরিচের গুঁড়া আধা চা-চামচ,১২. কাঁচা মরিচ মাঝখান দিয়ে ফাড়া ৬-৭টি।

যেভাবে করবেন: মাছে হলুদ, লবণ মাখিয়ে রাখুন। এবার চুলায় প্যান গরম হলে সরষের তেল (২ টেবিল চামচ) দিন। পেঁয়াজ কুচি, লবণ ও টমেটো কুচি দিয়ে হালকা ভেজে রসুন বাটা, ফাড়া করা কাঁচা মরিচ, হলুদগুঁড়া, মরিচগুঁড়া দিতে হবে। এবার মাখানো মাছ কিছুক্ষণ কষানোর পর সরিষা বাটা, পরিমাণমতো পানি দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। নামানোর আগে ধনিয়াপাতার কুচি ওপরে ছড়িয়ে দিন। ছড়ানো প্লেটে ঢেলে ১ টেবিল চামচ কাঁচা সরষের তেল ওপরে দিয়ে পরিবেশন করুন।

৯। আম দিয়ে কাচকি মাছ

যা লাগবে :১. কাচকি মাছ ২৫০ গ্রাম,২. কাঁচা আম ৬ টুকরা,৩. পেঁয়াজ বাটা ১ টেবিল চামচ,৪. পেঁয়াজ কুচি ১ চা-চামচ,৫. রসুন বাটা আধা চা-চামচ,৬. হলুদ গুঁড়া আধা চা-চামচ,৭. মরিচ গুঁড়া আধা চা-চামচ,৮. লবণ স্বাদমতো,৯. তেল ১ টেবিল চামচ,১০. কাঁচা মরিচ ফালি ৪টা,১১. ধনিয়াপাতা কুচি ১ টেবিল চামচ।

যেভাবে করবেন: কাচকি মাছ পরিষ্কার করে ধুয়ে ধনিয়াপাতা ছাড়া অন্য সব উপকরণ দিয়ে মেখে নিন। অল্প পানি দিয়ে বসান। মাছ সেদ্ধ হয়ে তেল ওপরে উঠে এলে ধনিয়াপাতা দিয়ে নামিয়ে নিন।

Add a Comment

Your email address will not be published.

CAPTCHA