ব্যাবহারের পর চা পাতা না ফেলে কাজে লাগান এই উপায়ে, জানুন বিস্তারিত

ভাত ও মাছের মতো বাঙ্গালির আরও একটি অপরিহার্য জিনিস তার দৈনন্দিন জীবনে প্রয়োজন আর তা হোল চা।
আড্ডার মেজাজ হোক বা অতিথি সেবা, চায়ের কদর সর্বত্র।

যে কোনও আলোচনাকে দীর্ঘ ও মনোজ্ঞ করে তুলতে পারে এক কাপ চায়ের সঙ্গত। এক কাপ চায়ে প্রিয় কাউকে নিয়ে মজে যাওয়ার অভ্যাসও এই শহরের বেশ পুরনো। তবে চায়ের যোগ্যতা শুধু ওটুকুতেই সীমাবদ্ধ নয় কিন্তু!

চা পাতা ও লিকার চা ব্যবহার করে ত্বক ও চুলেরও নানা উপকার করতে পারেন। চা পাতার ক্যাফিন ও ট্যানিন থাকায় ত্বক ওচুল পরিচর্যায় কাজে আসে এটি। চোখের নীচে ডার্ক সার্কল থেকে শুরু করে কন্ডিশনারের বিকল্পের খোঁজ— চা পাতায় লুকিয়ে অনেক সমাধান।

চা পাতার একটি ব্যাগ বা লিকার চা কী কী ভাবে কাজে লাগাতে পারেন, রইল তার হদিশ।

চা পাতায় থাকা ট্যানিন ও ক্যাফিন চোখের ফোলা ভাব কমায়। দূর করতে পারে ডার্ক সার্কলও। একটি টি ব্যাগ নিয়ে তাকে বরফ জলে ভিজিয়ে রাখুন। এই ঠান্ডা জলে ডোবানো টি ব্যাগ চোখের উপর ধরে থাকুন মিনিট দশেক। প্রতি দিন ঘুমনোর আগে এই অভ্ রাখতে পারলে সপ্তাহ দুয়েকের মধ্যেই ডার্ক সার্কল কমবে অনেকটা।

চায়ের লিকার ট্যান তাড়াতেো ওস্তাদ। কড়া লিকারে তুলো ভিজিয়ে সেই তুলো ট্যান পড়া অংশে চেপে রাখুন। নিয়মিত ব্যবহারে রোদে পোড়া ত্বকের জ্বালা ও কালচে ছোপ দুই-ই কমবে।

ব্যবহার করা হয়ে গিয়েছে এমন টি ব্যাগও ফ্যালনা নয়। রোদে একটু শুকিয়ে নিলেই ভাল স্ক্রাবার হিসেবে কাজ করতে পারে এটি। শুকনো টি ব্যাগের সঙ্গে গোলাপ জল যোগ করে নিলেই স্ক্রাবিংয়ের কাজ হবে।

ত্বক খুব তেলতেলে হয়ে গেলেও সহায় হবে চায়ের লিকার। লিকারে একটু লেবুর রস মিশিয়ে নিয়ে টোনারের মতো ব্যবহার করুন। ত্বকের তেলা ভাব কাটিয়ে ঝরঝরে হয়ে উঠবে ত্বক।

শ্যাম্পু করার পর ভাল করে চুল ধুয়ে সব শেষে চায়ের লিকার মাখিয়ে কিছু ক্ষম রেখে দিন চুল। কন্ডিশনারের কাজ সারবে চায়ের লিকার।

Add a Comment

Your email address will not be published.

CAPTCHA