ছাগল আর দুম্বা বিক্রি করে বাদলের আয় মাসে ২ লক্ষাধিক টাকা

দুম্বার পাশাপাশি ছাগলের খামার গড় ব্যাপক সফলতা পেয়েছেন বরিশাল নগরীর জিয়া সড়ক এলাকার বাসিন্দা মো. রেজাউল করিম বাদল। ২০১৮ সালে মাত্র ২ টি দুম্বা ও ৪টি ছাগল দিয়ে খামার শুরু করলেও বর্তমানে তার খামারে প্রায় ৫৬টি র্টাকি প্রজাতির দুম্বা এবং ৬ প্রজাতির প্রায় ২’শ-এর বেশি ছাগল। এছাড়াও দুম্বা ও ছাগল বিক্রি করে প্রতি মাসে তার আয় হয় ২ লক্ষাধিক টাকা বলেও তিনি জানান।

 

 

বাদল জানান, স্বল্প পুঁজি ও স্বল্প জায়গায় দুম্বার পাশাপাশি ছাগল্পলাওন শুরু করেছিলাম। সময়ের পরিক্রমায় আজ খামারে প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ লাখ টাকার দুম্বা ও ছাগল রয়েছে। এসব প্রতিপালনে প্রতি মাসে প্রায় ১ লাখ ২০ হাজার টাকা ব্যয় হয়। এছাড়াও প্রতি তিন মাসে প্রায় ৬ থেকে ৭ লাখ টাকা আয় হয়।

 

 

তিন ইয়ারও জানান, দুম্বা ও ছাগল পালনে তেমন একটা খরচ হয়না। সকাল-দুপুর আর বিকেল এ তিন বেলা ঘাসের পাশাপাশি গম ও ভুট্টার ভুসি খাওয়ানো হয়। টার্কি জাতীয় এসব দুম্বা ৬ মাস পর পর বাচ্চা দেয় এবং সেই বাচ্চাগুলো ৮-১০ মাসের মধ্যে ৮০-১২০ কেজি ওজনের হয়ে বিক্রির উপযোগী হয়।

 

 

এ প্রসঙ্গে বরিশাল বিভাগীয় প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের পরিচালক ভারপ্রাপ্ত ডাঃ নুরুল আলম বলেন, দুম্বা মূলত মরু অঞ্চলের প্রাণি। এছাড়াও দুম্বায় তুলনামূলক রোগবালাই কম। বাংলাদেশের আবহাওয়ায় দুম্বা পালনে নতুন সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। প্রাণিসম্পদ অফিসের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় সেবা ও পরামর্শমূলক সেবা প্রদান অব্যাহত রয়েছে বলেও তিনি জানান।

 

তথ্যসূত্রঃ আধুনিক কৃষি খামার

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

CAPTCHA