শিং মাছ চাষ লাভজনক করার ৯ টি গোপন কৌশল

শিং মাছ চাষ লাভজনক করার উপায় মৎস্য চাষিদের জেনে রাখা দরকার। প্রাকৃতিক উৎসে মাছের উৎপাদন কমে যাওয়ায় অনেকেই পুকুরে মাছ করতে আগ্রহী হয়ে উঠছেন। এদের মধ্যে অনেকেই শিং মাছের চাষ করে থাকেন। আসুন তাহলে আজকে জেনে নিব শিং মাছ চাষ লাভজনক করার উপায় সম্পর্কে-

 

 

শিং মাছ চাষ লাভজনক করার উপায়ঃ

১। পুকুর বা জলাশয়ের পাড়ের চারপাশে নিছিদ্র বেষ্টনি, পাড়ের মধ্যে গর্ত ও ইদুরের বা অন্য খাল থাকা যাবে না।

 

২। অবশ্যই পোনা কেনার সময় খেয়াল রাখতে হবে যে ভাল মানের হ্যাচারি থেকে এবং ভাইরাস ও জীবাণুমুক্ত পোনা হয়। মজুদের পুর্বে পুকুরে অবশ্যই জীবানুনাশক দিতে হবে।

 

৩। পুকুরের বা জলাশয়ের তলার কাদা ৬ থেকে ৮ ইঞ্চির বেশি হওয়া যাবে না। বেশি কাদা থাকলে তা তুলে ফেলতে হবে।

 

৪। পুকুরের বা জলাশয়ের গভিরতা ৪-৫ ফিটের বেশি হলে ও কম থাকা উচিত না। তাহলে মজুদ ঘনত্ব বেশি দেয়া যাবে না।

 

৫। দেহ ওজন পরিমাপ করে খাদ্য খাওয়ানো। মাছ চাষের লাভ ও লোকসান নির্ভর করে খাদ্য খরচের উপরে। খাদ্য অপচয় করা যাবে না। প্রতি সপ্তাহে একবার মাছের দেহ ওজনের উপরে নির্ভর করে খাদ্য সরবরাহ করতে হবে।

 

৬। শিং মাছ সাধারনত নিশাচর প্রজাতির মাছ এ জন্য দিনের বেলা খাবার দেয়ার পাশাপাশি রাতের বেলা অন্তত একবার হলেও খাবার প্রদান করা উচিত।

 

৭। ছোট আকারে পোনা মজুদ করলে পোনার মৃত্যু হার বাড়ে এবং মাছ বাড়তে সময় বেশি লাগে। সেক্ষেত্রে যত বড় পোনা মজুদ করা যায় তা মাছ চাষের জন্য বেশি নিরাপদ।

 

৮। পোনা পরিবহন ও পোনা পুকুরে ছাড়ার সময় সঠিকভাবে কন্ডিশনিং, তাপমাত্রা বিবেচনা করে পোনা ছাড়তে হবে। পোনার প্যাকেটের তাপমাত্রার সাথে পুকুরের পানির তাপমাত্রার সমান করে পোনা ছাড়তে হবে।

 

৯। শিং মাছের পুকুরে নিয়মিত জীবাণুনাশক ব্যবহার করতে হবে। প্রতিমাসে একবার জীবাণুনাশক ব্যবহার করা ভাল।

 

তথ্যসূত্রঃ আধুনিক কৃষি খামার

 

Add a Comment

Your email address will not be published.

CAPTCHA