মুখ থেকে বয়সের ছাপ দূর করা সহ আর যে যে উপকার করে এক টুকরো এলাচ

মসলা হিসাবে পরিচিত এলাচে আছে নানা রকম আয়ুবেদিয় গুন। চায়ে এলাচ, সবজি তে এলাচ এমনকি শুধু মুখেও এলাচ? আজ থেকেই শুরু করুন আরও বেশি করে। সমীক্ষা অনুযায়ী এই এক টুকরো এলাচ খেলে নানা শারীরিক সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। হ্যাঁ ঠিকই শুনেছেন। এই এলাচই দেবে আপনাকে শারীরিক উপশম।

চলুন দেখে নেওয়া যাক এক টুকরো এলাচ কি কি সমস্যা সমাধানে সক্ষম।

পেটের সমস্যা:

এলাচ এবং আদা সমগোত্রীয়। আমরা হয়ত অনেকেই জানি আদা খেলে পেটের নানা সমস্যা এবং হজমের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। তবে আরও এক অভিনব বিষয় হল এলাচ খেলেও এই সকল সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। বমি ভাব, পেট ফাঁপা,বুক জ্বালা বা অ্যাসিডিটির হাত থেকে মুক্তি পেতে এলাচ খুবই সাহায্য করে।

মুখের দুর্গন্ধ:

অনেকক্ষণ না খেলে বা অনেক সময় শারীরিক নানা কারণে মুখে দুর্গন্ধ হয়। আর এই দুর্গন্ধ দূর করতে খুব সাহায্য করে এলাচ।শুধু মুখে একটা এলাচ নিয়ে রেখে দিন দেখবেন প্রবলেম সলভড।মুখের দুর্গন্ধ ছাড়াও মাড়ির ইনফেকশন, মুখের ফোঁড়া সহ দাঁত ও মাড়ির নানা সমস্যা থেকে রক্ষা করে।

বয়সের ছাপ দূর করতে:

এলাচের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান ত্বকে বয়সের ছাপ, রিংকেল, ফ্রি র্যাহডিকেল ইত্যাদি পড়তে বাঁধা প্রদান করে। এলাচ ত্বকের ক্ষতি পূরণেও বেশ সহায়ক।
দেহের ক্ষতিকর টক্সিন দূর করতে: দেহের ক্ষতিকর টক্সিন দূর করতে এলাচের জুড়ি নেই। এলাচের ডিউরেটিক উপাদান দেহের ক্ষতিকর টক্সিন পরিষ্কারে সহায়তা করে।

রক্ত পরিষ্কার রাখতে:

রক্তনালীতে রক্ত জমে যাওয়ার সমস্যায় ভুগে থাকেন অনেকেই। এলাচের রক্ত পাতলা করার দারুণ গুনটি এই সমস্যা থেকে মুক্তি দেবে। প্রতিদিন এলাচ খেলে রক্তের ঘনত্ব সঠিক থাকে। এমনকি এলাচের ডিউরেটিক উপাদান উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা কমিয়ে আনতে সক্ষম।

গ্যাস্ট্রিক সমস্যা প্রতিরোধ করে:

এলাচ গ্যাস্ট্রিক সমস্যা প্রতিরোধ করে, অ্যাসিডিটি দূর করতে চিবাতে পারেন একটি এলাচ। এটি ডাইজেস্টিভ সিস্টেমকে সক্রিয় রাখে এবং হজমে সাহায্য করে। পেটের যে কোনো সমস্যা যেমন বদহজম নিরাময়ে সহায়তা করে। এক কাপ গরম পানিতে একটি এলাচ পিষে দিয়ে খেয়ে ফেলুন। দেখবেন হজমের সমস্যা সমাধান হয়ে গেছে।

শ্বাসকষ্টে:

মধু, লেবুর রস, গরম পানির সাথে একটা এলাচ পিষে মিশিয়ে পানিটুকু পান করালে তা শ্বাসকষ্ট দূর করবে। যারা হুপিংকাশি ও ফুসফুস সংক্রমণের মতো সমস্যায় ভুগে থাকেন তাদের জন্য এলাচ খুবই উপকারি।

চুলকানি প্রতিরোধেঃ

চুলকানি ভালো ভোগাচ্ছে, সাধারণ মলম ব্যবহারেও রেহাই নেই। এ ক্ষেত্রে বড় এলাচি চন্দনের মতো গষে গাগিয়ে এক ঘন্টা পর ধেয়ে ফেললে উপকার পাওয়া যাবে।

মাথা ব্যাথা দূর করে:

গরম পানিতে এলাচ গুড়ো ও মধু দিয়ে ফুটিয়ে তৈরি করে নিন এলাচ চা। মাথা ব্যথায় ভুগে থাকলে এক কাপ গরম এলাচ চা খেয়ে দেখুন। দেখবেন মাথা ব্যাথা নিমেষেই দূর হয়ে গিয়েছে। এছাড়াও এলাচ চা মানসিক চাপ কমাতেও সাহায্য করে।

সুতরাং আর দেরি না করে এলাচ খাওয়ার অভ্যাস তা করেই ফেলুন। তবে উপরিউক্ত যে সকল সমস্যার কথা বলা হয়েছে তা থেকে যদি জটিল কোন সমস্যা দেখা দেয় হয় তাহলে অবশ্যই আগে ডাক্তারের পরামর্শ নেবেন।

Add a Comment

Your email address will not be published.

CAPTCHA