একই জমিতে ধান ও উপরে মাচায় লাউ চাষ করে ৫০ লাখ টাকার মালিক

একই জমিতে নিচে ধান খেত এবং উপরে মাচা পদ্ধতিতে লাউ চাষে ব্যাপক সফলতা পেয়েছে জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার বাহাদুরাবাদ ইউনিয়নের ভাটিরপাড়া গ্রামের প্রান্তিক চাষি জাহাঙ্গীর আলম।

 

 

বছর ১৫ আগে মাত্র ১৬ হাজার ৫০০ টাকা পুঁজি নিয়ে সমন্বিত চাষাবাদ শুরু করলেও সময়ের বিবর্তনে আজ তিনি প্রায় ৫০ লাখ টাকার মালিক। তার দেখাদেখি এখন এলাকার অনেকেই শাকসবজি চাষে আগ্রহী হয়ে উঠছেন বলে জানিয়েছেন জাহাঙ্গীর।

 

 

জাহাঙ্গীর আলম জানান, তিনি এ বছর মাত্র ১৫ শতক জমিতে সাথী ফলস হিসেবে নিচে ধান ও উপরে মাচা পদ্ধতিতে আগাম লাউ চাষ করেছেন। এরইমধ্যে ২০ হাজার টাকার লাউ বিক্রি করেছেন।

 

 

এছাড়াও ধানের ফলনও ভালো হয়েছে। কম করে হলেও ১০ মন ধান পাওয়া যাবে। এছাড়াও গাছে এখনো যে পরিমাণ লাউ আছে তা বিক্রি করে ৫০-৬০ হাজার টাকা পাবেন বলে আশা প্রকাশ করেন।

 

 

তিনি আরও আরো জানান, উপযুক্ত পরামর্শ এবং সঠিক নির্দেশনা পেলে তিনি এই সবজি চাষে আরো বেশি আগ্রহী হয়ে উঠবেন। তিনি কোনো ঋণ নিতে চান না। নিজের উপার্জিত অর্থ দিয়েই আরো উন্নতি করতে চান তিনি।

 

 

দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ পরেশ চন্দ্র দাস বলেন, ‘দিন দিন জমির স্বল্পতা বৃদ্ধি পাওয়ায় সাথি ফসলের কোনো বিকল্প নেই। অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনে সাথী ফসল ব্যাপক ভূমিকা রাখছে। এই চাষি যে উদ্ভাবনী শক্তি কাজে লাগিয়েছেন তা প্রশংসার দাবিদার। আমাদের পক্ষ থেকে তাঁর প্রতি সার্বিক সহযোগিতা এবং পরামর্শ অব্যাহত থাকবে।

তথ্যসূত্রঃ আধুনিক কৃষি খামার

 

Add a Comment

Your email address will not be published.

CAPTCHA