তুলসী পাতা দিয়ে কিভাবে গরুর খামারের রোগ নিরাময় করবেন

গরুর খামারে রোগ নিরাময়ে তুলসী পাতার ব্যবহার আমরা অনেকেই জানি না। তুলসী পাতায় রয়েছে বিভিন্ন ভেষজ উপাদান যা রোগ প্রতিরোধে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। গরুর খামারেও বিভিন্ন রোগের চিকিৎসায় তুলসী পাতার ব্যবহারে উপকার পাওয়া যায়। চলুন জেনে নেই গরুর খামারে রোগ নিরাময়ে তুলসী পাতার ব্যবহার সম্পর্কে-

 

 

গরুর খামারে রোগ নিরাময়ে তুলসী পাতার ব্যবহারঃ

 

 

✓ হঠাৎ করে খামারের গরু বা বাছুর পেটের ব্যাথায় ভুগলে। একবার উঠছে, একবার বসছে।

 

 

এক্ষেত্রে বড় বা মাঝারী আকারের গরুকে ৩০ মি.লি এবং বাছুর বা ছোট গরুকে ২০ মি.লি তুলসী পাতার রস খাওয়াতে হবে, এতে ব্যাথা চলে যাবে আশা করা যায়। ৬ ঘন্টা পর পর ৩ বার দিতে হবে।

 

 

✓ খামারের গরু কিংবা বাছুরের গায়ে জ্বর বা সামান্য কাশি হলে তুলসী পাতা ব্যবহারে ভাল ফল পাওয়া যায়।

 

 

এক্ষেত্রে গাভীকে ৩০ মি.লি তুলসী পাতার রসের সাথে চার চা চামচ মধু মিশিয়ে ৩/৪ বেলা খাওয়াতে হবে, আশা করা যায় জ্বর ভাল হয়ে যাবে। বাছুরের ক্ষেত্রে পথ্যের পরিমাণ টা অর্ধেক হবে।

 

 

✓ হঠাৎ খামারের গরু বা বাছুর কোন কারণে আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে ক্ষতের সৃষ্টি হলেও তুলসী পাতা ব্যবহারে উপকার পাওয়া যায়।

 

 

এক্ষেত্রে তুলসী পাতা বেঁটে পেস্টের মত তৈরী করে ক্ষত স্থানে ২ থেকে ৩ দিন লাগালে ক্ষত দ্রুত সেরে যাবে ও ইনফেকশন রোধেও কাজ করবে।

 

 

✓ খামারের বাছুরটি কৃমিতে আক্রান্ত হলে তুলসী পাতা ও মুলের রস বের করে ১৫ মি.লি নিয়ে খাওয়ালে কৃমিনাশক ওষুধের কাজ করবে ও পেটের কৃমির সমস্যা দূর করবে। প্রথম বার খাওয়ানোর ৭ দিন পর আবার খাওয়ালে ভালো কাজ করবে।

 

 

তথ্যসূত্রঃ  ডা মোঃ শাহিন মিয়া
বিসিএস প্রাণিসম্পদ, ভেটেরিনারি সার্জন

Add a Comment

Your email address will not be published.

CAPTCHA