রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে ডাবের পানির ব্যাবহার

ডাব পছন্দ করেন না এমন মানুষ হয়তো খুঁজে পাওয়া যাবে না। এর ভেতরের স্বচ্ছপানি পানীয় হিসেবে খুবই সুস্বাদু। এছাড়াও ডাবের ভেতরে হালকা শ্বাস থাকে। যা কিনা অনেক সুস্বাদু ও মিষ্টি। এই ডাবের পানির অসাধারণ কিছু গুণাগুণ রয়েছে। নিয়মিত ডাব খেলে শরীরের অনেক উপকারও হয়। এবার ডাবের পানির গুণাগুণের ব্যাপারে জেনে নেওয়া যাক।

 

ডাবের পানি হচ্ছে প্রাকৃতিক টোনার। এটি শরীরের ত্বককে সংক্রমণ থেকে রক্ষা করার পাশাপাশি সার্বিকভাবে স্কিনের ঔজ্জ্বল্য বাড়ানোর জন্য বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

 

এছাড়াও ব্রণের প্রকোপ কমাতেও অনেক কার্যকরী ভূমিকা রাখে।মানবদেহে সব থেকে বেশি প্রয়োজন হচ্ছে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করা। ডাবের পানিতে রয়েছে রাইবোফ্লবিন, নিয়াসিন, থিয়ামিন ও পাইরিডোক্সিনের মতো উপকারী উপাদান। নিয়মিত ডাবের পানি পান করার ফলে শরীরে শক্তি বৃদ্ধি পায় প্রচুর। ফলে জীবাণুরা কোনোভাবেই ক্ষতি করার মতো কোনো সুযোগ পায় না।

 

সার্টিফিকেট হিসেবে বয়স বাড়লেও নিয়মিত ডাবের পানি পান করার ফলে ত্বকে বয়সের ছাপ থাকবে না। তাই বয়সকে ধরে রাখার জন্য নিয়মিত ডাবের পানি পানের মতো গুরুত্বপূর্ণ কিছু নেই। ডাবের পানিতে সাইটোকিনিস নামে অ্যান্টি-এজিং উপাদান রয়েছে। এটি শরীরের উপর বয়সের ছাপ পরতে দেয় না। সঙ্গে ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখে।

 

ডাবের পানিতে রয়েছে উচ্চমাত্রায় খনিজ লবণ, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম ও ফসফরাস। এসব উপাদান দাঁতের ঔজ্জ্বল্য বৃদ্ধি করে দাঁতের মাড়িকে অনেক মজবুত করে তোলে। অনেক সময় দেখা যায় অনেকের মাড়ি দিয়ে রক্ত ঝড়ে। এমনকি কারও তো মাড়ি কালচে লাল হয়ে যায়। নিয়মিত ডাবের পানি পান পান করলে মাড়ির কালচেভাব ও দাঁত লাল হওয়া থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

তথ্যসূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া

Add a Comment

Your email address will not be published.

CAPTCHA