এবার কলার খোসা দিয়ে দূর করুন ব্রণ ও বলিরেখা, ১০০ ভাগ কার্যকরী

মুখের ব্রণ ও বলিরেখা দূর করতে কতো কিছুই না ব্যাবহার করেছেন। কিন্তু তেমন ভাল রেজাল্ট পাননি। তাই আজ থেকে নিচের নিয়মে ব্যাবহার করুন কলার খোসা। কলার খোসায় রয়েছে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, ফ্যাটি অ্যাসিড, আয়রন, পটাসিয়াম ও জিঙ্ক। এসব উপাদান ত্বকের যত্নে অনন্য। বলিরেখা ও ব্রণ দূর করতে পারে কলার খোসা। জেনে নিন উজ্জ্বল ও সুন্দর ত্বকের জন্য কলার খোসা কীভাবে ব্যবহার করবেন।

ব্রণ দূর করতে

কলার খোসা ব্লেন্ড করে নিন। ২ টেবিল চামচ কলার খোসার পেস্টের সঙ্গে আধা চা চামচ মধু ও আধা চা চামচ হলুদ মেশান। ফেস প্যাকটি ১৫ মিনিট লাগিয়ে রাখুন ত্বকে। কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি ব্রণ দূর করতে সাহায্য করবে।

বলিরেখা দূর করতে

টানটান ত্বকের জন্য একটি কলার খোসা পেস্ট করে ডিম মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি ত্বকে ২০ মিনিট লাগিয়ে রেখে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

ব্রণের দাগ দূর করতে

রাতে ঘুমানোর আগে কলার খোসার ভেতরের অংশ ঘষুন ব্রণের দাগের উপর। সারারাত রেখে পরদিন সকালে ধুয়ে ফেলুন ত্বক।

শুষ্ক ত্বকের যত্নে

একটি কলার খোসা গ্রিন্ডারে পেস্ট করে নিন। সমপরিমাণ ওটমিল গুঁড়া ও চিনি মেশান। পরিমাণ মতো কাঁচা দুধ মিশিয়ে মিহি পেস্ট বানিয়ে নিন। মিশ্রণটি আধা ঘণ্টা ত্বকে লাগিয়ে রেখে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুইবার ব্যবহার করলে দূর হবে ত্বকের রুক্ষতা।

তৈলাক্ত ত্বকের যত্নে

১ টেবিল চামচ কলার খোসার পেস্টের সঙ্গে ২ চা চামচ ডিমের সাদা অংশ ও কয়েক ফোঁটা ল্যাভেন্ডার এসেনশিয়াল অয়েল মিশিয়ে নিন। ফেস প্যাকটি ২০ মিনিট ত্বকে লাগিয়ে রেখে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে একবার ব্যবহার করলে কমবে তৈলাক্ত ভাব।

কালচে দাগ দূর করতে
১ টেবিল চামচ কলার খোসার পেস্ট ও ২ চা চামচ টমেটো মিশিয়ে নিন। ত্বকে লাগিয়ে রাখুন আধা ঘণ্টা। ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। একদিন পর পর ব্যবহার করলে দূর হবে ত্বকের কালচে দাগ।

Add a Comment

Your email address will not be published.

CAPTCHA